fbpx

শারদ শুভেচ্ছা- দেবুন মাইতি

শারদ শুভেচ্ছা- দেবুন মাইতি

ভাদ্রের প্রত্যাগমন আশ্বিনের আগমন 
শরৎ এ পুজার সম্ভাষন তাই ভেবে কাটে না যে মন।
আসছে যে পূজোর দিনক্ষণ ।
শুভ্র আকাশে ভাসছে মেঘ পেঁজা তুলোর মতো।
মাঠে ঘাটে ভরছে আজ কাশফুল যে কত ।।
প্রভাতবেলায় ঝরছে শিশির স্নিগ্ধ শিউলির গন্ধে।
ঢ়াকে কাঠি পড়বে যে মাতছে মন আনন্দে।।
একটি বছর পার করে মা আসছে মোদের বাড়ি।
সঙ্গে আছে পুত্র কন্যা সাথে বাহন সারি সারি।।
ষষ্ঠীতে আরাধনা সপ্তমীতে পূজো ।
অষ্টমী আর নবমীতে নতুন ভাবে সাজো।।
মাগো তুমি সর্বজনীন থাকো হৃদয় মাঝে।
তোমার কৃপায় এই ধরা যে নতুন রূপে সাজে।।
বর্তমানে এই ভূমিতে মারণ রোগের বাস ।
মাগো তুমি বিনাশকারিনী করো তার নাশ।।
পূজোর কদিন দুঃখ ঘুচে আসবে সুখের অনুভুতি।
তাই সকল কে জানাই শুভ শারদীয়ার শুভেচ্ছা ও প্রীতি।

কবি পরিচিতি: –

দেবুন মাইতি ১৯৯৮ সালে ১৫ডিসেম্বর পূর্ব মেদিনীপুর জেলার উত্তর বাধিয়া গ্ৰামে এক দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। পিতা-রতন মাইতি ,মাতা -নিয়তী মাইতি। প্রাথমিক শিক্ষা উত্তর বাধিয়া প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে। কিন্তু কবি ক্লাস চতুর্থ শ্রেণীতে পড়াকালীন মাকে হারান চিরতরে। এরপর ক্লাস পঞ্চম শ্রেণী থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর পাঠ গ্ৰহন করেন মীরগোদা মৃত্যুঞ্জয় বানীপীঠ বিদ্যালয় থেকে। দ্বাদশ শ্রেণির পাঠের শেষে কবি ভবিষ্যতে শিক্ষক হওয়ার লক্ষ্যে কেলোমাল সরকারি প্রাথমিক শিক্ষক সংস্থা থেকে ডি.এল .এড কোর্সের প্রশিক্ষণ নেন।ওই কলেজে পাঠ চলাকালীন কবির প্রথম কবিতা “বন্দি খাঁচার পাখি”প্রকাশিত হয়। দরিদ্র কে এড়িয়ে কবি রামনগর কলেজ থেকে বাংলা সাম্মানিক পাশ করেন। বর্তমান কবি রামনগর কলেজের এম.এ প্রথম বর্ষের ছাত্র।